ঋতু পরিবর্তন ও প্রচন্ড শীতে শিশুদের করণীয়

ঋতু পরিবর্তন ও প্রচন্ড শীতে শিশুদের করণীয়
Collected

ঋতু পরিবর্তন এবং প্রচন্ড শীতে শিশুদের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। সমস্যা নিয়ে অভিভাবক ও পরিবারের সদস্যরা নানা ভোগান্তিতে থাকে। ঋতু পরিবর্তনে শিশুর করণীয় বিষয়ে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ খন্দকার এ.এইচ সায়াদ জানান, প্রচন্ড শীতে শিশুরা আক্রান্ত হয় নানা রোগে। শীতে অসুখের অন্যতম কারণ বায়ুবাহিত বিভিন্ন রোগজীবাণু যা সহজেই শিশুদের আক্রমণ করে। সেই সাথে ধুলোবালি শ্বাস প্রশ্বাসের সাথে নাক দিয়ে ফুসফুসে প্রবেশ করে গলায় নাকে প্রদাহ, সর্দি, কাশিসহ নানা সমস্যা করে। মাত্রাতিরিক্ত দূষিত ধোয়া, ধুলো শিশুদের নিউমনিয়া, ব্রঙ্কাইটিসের মত সমস্যাও হয়। ভালভাবে হাত না ধুলে এতে রোগ ছড়ায়। শিশুদের প্রতিদিন হাত পরিস্কারের অভ্যাস করাতে হবে। শীতে গরম পানিতে গোসল করাতে হবে। শুষ্ক শীতের সময়ে শ্বাস প্রশ্বাস এর সাথে অন্য সময়ের তুলনায় বেশি পানি বেরিয়ে যায়। এ সময় সমস্যা প্রতিরোধে শিশুকে শাক সবজি, ফলমুল এবং সুষম খাদ্য খাওয়াতে হবে। শীত ফ্রিজের ঠান্ডা পানি, আইসক্রিম ও বাইরের খাবার থেকে শিশুদের দূরে রাখতে হবে। প্রতিদিন বেলা ১২টার মধ্যে তাদের গোসল করাতে হবে। আবহাওয়ার অবস্থা বুঝে বৈদুতিক পাখা (ফ্যান) চালাতে হবে এবং শেষ রাতের দিকে  গরম কাপড় দিয়ে তাকে উষ্ণ রাখতে হবে। ঘরের বিছানা , পোশাক সব সময় পরিষ্কার  রাখতে হবে। ঋতু পরিবর্তনে শিশুরা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়, এসময়ে শিশুকে ভাজা খাবার, বাসি কেক, পেস্টি, দোকানের জুস থেকে বিরত রাখতে হবে। শিশুদের মাথায় খুশকি, গলায়, বগলে, খাইয়ের খাঁজে, ন্যাপি এরিয়ায় লাল লাল দাগ হয়। চামরা উঠতে শুরু করে। মাঝেমধ্যে রস বের হয়। চোখের পাতায় পলকে স্কেলস হতে পারে। এজন্য নিয়মিত পরিমাণ মত নারকেল তেল বা অলিভ ওয়েল বাচ্চার চুলে ব্যবহার করতে হবে। বাচ্চার শরীরে সরিষার তেল মাখা যাবে না। দুই তিন মাস এই পদ্ধতি সচল রাখতে হয়। আবহাওয়ার কারণে শিশুদের ত্বক অনেক সময় অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যায় এতে এক জিমার মত সমস্যা হতে পারে। হ্যাঁচি হতে পারে যাকে বলা হয় অ্যালার্জিক রাইনাইটিস। পরিবারের কারো একজিমা বা এ্যাজমা থাকে তা থেকেও শিশু আক্রান্ত হতে পারে। ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে শিশুদের চুলকানি, ত্বকে লালচে হয়ে যাওয়া এবং বিভিন্ন রোগ হতে পারে। শিশুর ব্যবহারের সাবান এবং শ্যাম্পু ব্যাপারে সচেতন থাকুন। বিজ্ঞাপন ভাল লাগলেই শিশুর জিনিস কেনা যাবেনা। পরীক্ষিত পণ্য ব্যবহার করুন। এছাড়া শিশু যদি গুরুত্বর অসুস্থ  হলে  স্থানীয় হাসপাতাল ও শিশু চিকিৎসকের পরামর্শ নিন প্রচন্ড শীত থেকে শিশুকে রক্ষায় গরম কাপরে ঢেকে রাখুন। ঠান্ডা আবহাওয়ায় ঘরের ভিতরে রাখুন। খাবারের ক্ষেত্রে ঠান্ডা খাবার না খাওয়ানো ভালো।